আল্টিমেটাম

সুন্দরীতমা আমার! যদিও এখন দেশ রসাতলের তলানিতে পৌছে গেছে গনতন্ত্রের নামে দেশে চলছে নব্য বাকশাল নির্বাচিত জন প্রতিনিধিদের সন্ত্রাস। তবুও এখনও আমার প্রতিটি ঘুমহীন রাতে রাতের চাঁদকে তোমার মুখাবয়ব ভেবে ভ্রম হয়! এই চাদ ডুবে যাক, বা মেঘে ঢেকে যাক

বাংলাদেশের তৈরী ‘অ্যান্ড্রয়েট স্মার্টফোন

বাজারে আসছে প্রথমবারের মত বাংলাদেশে উৎপাদিত ‘অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন’। সাম্প্রতিক সময়ে আলোচিত ইলেকট্রিক কোম্পানী ‘ওয়ালটন’ বাজারে আনছে এই অত্যাধুনিক সুবিধা সম্বলিত ফোন। দেশের সাধারণ গ্রাহকের কথা চিন্তা করে সাধ্যের মধ্যে এই স্মার্টফোনের দাম নির্ধারণ করা হবে বলে জানিয়েছেন ওয়ালটনের বিপণন বিভাগ।

পত্রিকায় জনমত (সাক্ষাৎকার)

পাক্ষিক একপক্ষ (http://www.ekpokkho.com) পত্রিকার আগামী সংখ্যায় ‌’তত্ত্বাবধায়ক না অন্তবর্তীকালীন, কোন সরকার এবং কেন’ এই বিষয়ে জনমতভিত্তিক সাক্ষাৎকার প্রকাশিত হবে। এবিষয়ে আগ্রহীরা উপরোক্ত বিষয়ে ৩০০ শব্দের মধ্যে নিজের মতামত পাঠাতে পারেন। লেখা ছবি ও নিজের নাম পরিচয় আগামী ৮ অক্টোবরের মধ্যে

কবিতা ও ছোট গল্প আহ্বান

বিশ্ব বাঙালির ১৫দিন শ্লোগান নিয়ে প্রতি পক্ষ (১৫দিন) অন্তর অন্তর প্রকাশিত হচ্ছে ‘পাক্ষিক একপক্ষ’। একপক্ষ’র আগামী সংখ্যার জন্যে ছোটগল্প ও কবিতা আহ্বান করা যাচ্ছে। আগ্রহীরা লেখা পাঠাতে পারেন এই ঠিকানায়: nabokobi@gmail.com

সেইদিন

আজকের দিনটা- ইতিহাসে আলাদা পরিচিতি পাবেনা কোনকালেও। কারো জানাই হবেনা আজকের দিনের পটভুমি! কোনদিনও কেউ করবেনা কোন আয়োজন এই দিনটাকে ঘিরে, আজকের দিনকে নিয়ে কোন কবিই লিখবেনা দু’ছত্র কোন লেখকেরই লেখা থাকবেনা দু’কলম। প্রিন্ট আর ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় থাকবেনা আজকের দিনের

হুমায়ূন আহমেদ সম্পর্কে লেখা চাই।

বিশ্ব বাঙালির ১৫ দিনের পাক্ষিক ‘একপক্ষ’ পত্রিকার আগামী সংখ্যা (১-১৫আগষ্ট) সদ্য প্রয়াত সমকালীন বাংলা সাহিত্যের প্রধান সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের জীবন, সাহিত্য, কীর্তি, পুরষ্কার ও তার জীবনের নানা দিক নিয়ে তথ্য সমৃদ্ধ লেখা চাই । ১৫০০ শব্দের মধ্যে লেখা পাঠাতে পারেন।২৫

বিষমবাহু

ভালবেসে মানুষ পরষ্পর কাছে আসে আমরা হয়েছি আরো বিচ্ছিন্ন ভালবেসে! এত কাছে আছি, তবু দুজনার মাঝে মস্ত কাচের দেয়াল- উঠেছে কবে, অযতনে সে কখা হয়নি খেয়াল। আমরা রচেছি কত সুরমালা রচেছি দীর্ঘশ্বাস, আমাদের বন্ধন প্রেম হয়ে ওঠার পায়নি’ক অবকাশ। কাছাকাছি

ভাষা শহীদদের বৈঠক

তখন অমানিশার মাঝ রাত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদীতে বিশৃঙ্খল ভাবে বসা ক’জন যুবক আর কয়েকজন তরুণ। সবাই চুপচাপ শান্ত,কেউ এদিক ওদিক তাকাচ্ছে কেউ গালে হাত দিয়ে নিমগ্ন। আশে পাশে সিড়িতে আর চত্বরে ছিন্নমূল মানুষের সুখের নিদ্রা। কবি মন বলেই এগিয়ে

উপসংহার

আজ ফাগুনের আগুন বনে- জনহীন মনের ময়দানে তোমার স্ববিরোধীতার কথা কই! তুমি এখন ক্ষমতাসীন, আমি ভিন্নমতের সই! আজ ফাগুনের রাঙা দিনে- তুমি মনের ময়দানের মহাসমাবেশে এসে আমায় ঘোষণা দিলে অবাঞ্ছিত, তুড়ি দিয়ে হেসে। তোমার আমার পথ করলে পৃথক, ঘোষণা দিয়ে

‘বিদ্রোহী’ স্কয়ার ‘বিদ্রোহী’ টাওয়ার

আমাদের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম তাঁর চির জনমের হারানো গৃহলক্ষ্মী নার্গিসকে জীবনের শেষ ও একমাত্র পত্রে লিখেছিলেন, ‘তুমি এই আগুনের পরশমানিক না দিলে আমি অগ্নিবীণা বাজাতে পারতাম না—আমি ধূমকেতুর বিস্ময় নিয়ে উদিত হতে পারতাম না।’ নজরুলের এই কথাগুলো যে