মে দিবস বা আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস, বিশ্বজুড়ে শ্রমিকদের ন্যায্য অধিকার আদায়ের আন্দোলন তাৎপর্যপূর্ণ একটা দিন। এই দিন ১৮৮৬ সালে আমেরিকার শিকাগো শহরের হে মার্কেটের ম্যাসাকার আন্দোলনরত শ্রমিক শহীদদের আত্মত্যাগকে স্মরণ করে দিনটি পালিত হয়।
শ্রমিকদের প্রতি সঠিক দায়িত্ব শুধু মানবিকতা নয় ধর্মীয় নির্দেশনাও। শ্রমিকদের প্রতি সুবিচারের নির্দেশ দিয়েছে শান্তি ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার ধর্ম ইসলাম। ইসলাম শ্রমের প্রতি যেমন মানুষকে উৎসাহিত করেছে (জুম‘আহ ১০), তেমনি শ্রমিকের সম্মান ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার পূর্ণ প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ নবী মুহাম্মদ (স:) শ্রমিক ও শ্রমজীবী মানুষকে অত্যন্ত সম্মানের দৃষ্টিতে দেখতেন। কারণ যারা মানুষের সুখের জন্য মাথার ঘাম পায়ে ফেলে নিজেদেরকে তিলে তিলে নিঃশেষ করে দেয়, তারাতো মহান আল্লাহর কাছেও মর্যাদার অধিকারী। এজন্য রাসূলুল্লাহ (স:) এরশাদ করেন,
أُعْطُوا الْأََجِيْرَ أَجْرَهُ قَبْلَ أَنْ يَّجِفَّ عَرقُهُ
‘তোমরা শ্রমিককে তার শরীরের ঘাম শুকানোর পূর্বেই পারিশ্রমিক দিয়ে দাও’। [ইবনু মাজাহ, মিশকাত হা/২৯৮৭, ‘ক্রয়-বিক্রয়’ অধ্যায়।]
ইসলামে মালিক-শ্রমিক সম্পর্ক হবে পিতা-সন্তানের ন্যায়। শ্রমিককে তার প্রাপ্য পূর্ণভাবে যথাসময়ে প্রদান করাও মালিকের একটি প্রধান দায়িত্ব। শ্রমিকরা যেন অধিকার বঞ্চিত না হয় এজন্য রাসূলুল্লাহ (স.) এরশাদ করেন, ‘মহান আল্লাহ বলেন, কিয়ামতের দিন তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হবে। তাদের মধ্যে একজন হ’ল :
وَ رَجُلٌ أسْتَأْجَرَ أَجِيْرًا فَاسْتَوْفَى مِنْهُ وَلَمْ يُعْطِهِ أَجْرَهُ
‘যে শ্রমিকের নিকট থেকে পূর্ণ শ্রম গ্রহণ করে অথচ তার পূর্ণ মজুরী প্রদান করে না’। [৩. বুখারী, মিশকাত হা/২৯৮৪।]
ধর্মীয় বাধ্যবাধকতা আর মানবিকতাকে দূরে সরিয়ে শোষণ করা হচ্ছে শ্রমিকদের। তাঁদের হাড়ভাঙা শ্রমে গড়ে উঠেছে সভ্যতা। কিন্তু এই সভ্যতার চাকচিক্যের আড়ালে থেকে যায় তাঁদের লাঞ্ছনা-বঞ্চনার কথা। নামমাত্র পরিশ্রমের বিনিময়ে ঠেলে দেওয়া হয় মৃত্যুর মুখে। কারখানাগুলো এক একটা কারাগার সেখানে শ্রমিক পুড়ে মরে, দালান ধ্বসে মরে, কিংবা অভাব অনাটনে বিনাচিকিৎসায় ধুকে ধুকে মরে। প্রবাসীশ্রমিকদের লাঞ্ছনা-বঞ্চনার আখ্যান আরও ভয়াবহ, আরও মর্মান্তিক। যে রাষ্ট্র তাদের পাঠান রেমিটেন্সে রাজকোষ ভর্তি করে, সেই রাষ্ট্রই সেই সব শ্রমিকদের দিতে পারেনা পর্যাপ্ত নিরাপত্তা। বিপদের সময় আটকে থাকে আমলাতান্ত্রিক জটিলতার দোহায়ে।
আমাদের সভ্যতার মূল কারিগর এই শ্রমিকদের সম্মাননা জানাতে ‘ গল্পকবিতা ‘ আয়োজন করেছে একটা উদ্যোগ। শ্রমিক ভাইদের শ্রদ্ধার্হ নিবেদন করি গল্প ও কবিতার শব্দ মালা দিয়ে। মে দিবসের এই বিশেষ সংখ্যার লিখতে চাইলে বিস্তারিত দেখুন ‘ গল্পকবিতা ‘য়।

লিখুন মে দিবসের বিশেষ সংখ্যায়

Leave a Reply