কবিতা দিয়েই আপনাদের সাথে যাত্রা শুরু হোক…

রুপান্তর

পুরুষ্ট আঙুরের মতো তোমার স্তনবৃন্ত টিপতেই

বেরুলো দুধের নহর,

ফেলে রাখা জমিনে লাঙ্গল দিতেই

উঠে এলো প্রথম ফসল ।

 

এবার নবান্নের মেলা হবে –

ফুলে ফলে ভরে উঠবে চারিদিকে

জমির আল, দিগন্ত দুরের,

পাখীরা বসবে ডালে ।

বাহুলতা, পদ্মার ঝিলিমিলি নিয়ে

হয়ে যাবে বহতা নদী যেন এক ।

কোমল জঘনের বিস্তির্ন দু’ধার

স্নেহের পলিতে যাবে ছেঁয়ে,

বুকের সুতীব্র ঢালে জড়ো হবে নতুন চমক,

ফুঁসে উঠবে উদ্যত নাগিনীর মতো

কালোপনা চক্র তার,

ধীরে ধীরে পূর্ণ চাঁদের মতো গোলাকার

হবে তার দেহ ।

বড় বেশী শানাবে জোনাকী চোখ,

কানায় কানায় ছলছলাৎ হবে মুখের হাসি ।

আদিগন্ত বিস্তৃত সবুজ শরীরে

উড়ে যাবে শালিকের দল,

গভীর নাভীমূল নাব্যতা হারাবে তার ।

রসে টস্‌টসে হবে আবাদি জমিন

আসন্ন ফসলের ভরা মাসে, হে জাহ্নবী !

 

এবার তুমি হবে এক নারী, এক মানবী ।

রূপান্তর (কবিতা)

3 thoughts on “রূপান্তর (কবিতা)

  • September 5, 2011 at 10:51 pm
    Permalink

    আপনার কবিতা ভাল লাগলো। ধন্যবাদ।

    • September 6, 2011 at 12:47 pm
      Permalink

      সাঈদ,
      কবিতাটি ভালো লেগেছে জেনে খুশি হলাম । ধন্যবাদ আপনাকে ।

Leave a Reply