ছুটছি তো ছুটছি আমি অবিরাম

এ ছোটার কোনো শেষ নেই–

পেছনে ফেলে যাচ্ছি একে একে পথ

বাঁকের পথ বাঁক

যেনো ট্রেন থেকে দেখা চলন্ত পরিবেশ;

পেছনে ছুটছে গাছপালা নদী পাখি

হারিয়ে যাচ্ছে দৃশ্যাবলী বাড়িঘর সব

হঠাৎ দেখি উধাও হয়ে গেছে

আমারই প্রিয় বাংলাদেশ!

এ এক নতুন ভূখন্ড নাকি আবার

কোনো ভিনগ্রহ অচেনা জগত?

যেদিকে তাকাই ঝাঁকঝাঁক শকুন

ছিঁড়েছূঁড়ে খাচ্ছে সোল্লাসে

নবজাতকের রক্তাভ শরীর।

মানুষ খাচ্ছে মানুষ যেনো জীবন্ত লাশ

ইয়াসমীনদের খুবলে খুবলে খাচ্ছে অদ্ভুত জীব!

এখানে বসন্ত নেই কলগুঞ্জন নেই

বয়ে চলেছে কোথাও কোথাও অশ্রুনহর–

কখনোবা ধেয়ে আসছে এইড্সেরও কীট

অবাক কান্ড, অদ্ভুতেরা কেবল তখনই হচ্ছে কুপোকাত্

নেতিয়ে পড়ে হয়ে যাচ্ছে একেবারে নির্জীব?

দেখে তাই শিউরে উঠি দেই পেছনছুট–

কিন্তু পারিনা খুঁজেও পাইনা আবাস

একি ইয়াজুজ-মাজুজের দেশ নাকি কোনো মধ্যযুগ

কোনো ভিনগ্রহ

2 thoughts on “কোনো ভিনগ্রহ

Leave a Reply