৩৪ বছর পর পশ্চিমবঙ্গের শাসন ক্ষমতা থেকে বামফ্রন্টের বিদায় নিতে হলো। মমতা ব্যানার্জির তৃণমূল কংগ্রেস বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছে। বেশ কিছুদিন আগে থেকেই অনেকেই ধারনা করেছিলেন এবার বামফ্রন্ট সরকারের যাবার সময় হয়ে গেছে।

১৯৭৭ সালে জ্যোতি বসুর নেতৃত্বে বামফ্রন্ট সরকার প্রথম ক্ষমতায় আসে। জ্যোতি বসু একাই ২৩ বছর পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে গেছেন। ২০০০ সালে তিনি বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের হাতে বামফ্রন্টের দায়িত্ব তুলে দেন।

বামফ্রন্ট সরকারের বিদায় পশ্চিমবঙ্গের জন্য ভাল হলো না খারপ হলো তা বলার সময় এখনও আসে নি। একটা পরিবর্তন মনে হয় দরকার ছিল। মূলত ভূমি অধিগ্রহন বিষয়ে আন্দোলনের পর মমতা ব্যানার্জির জনপ্রিয়তা তুঙ্গে ওঠে। অনেক বিশ্লেষক মনে করেন, পশ্চিমবঙ্গকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছেন বামফ্রন্ট এবং জনগনের আশা আকাঙ্খা মিটাতে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে তারা। কিন্তু মমতা ব্যানার্জির তৃণমূল কংগ্রেস পশ্চিমবঙ্গের জন্য কত কি করতে পারেন তা সময়ই বলে দেবে।

এ পরাজয় হয়তো বামফ্রন্টের জন্যই ভালো হলো। তাদের একটা বিরতির দরকার ছিল নিজেদের ভুলগুলো শুধরে নেবার জন্য, এ সময়ের মধ্যে তারা নিজেদের আরো গুছিয়ে নিতে পারবে আশা করি এবং পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাভার পুনরায় গ্রহন করবে। তাদের নির্বাচনে পরাজয় মেনে নেওয়া এবং সরকারকে সহযোগীতার মনোভাব দেখে ভাল লেগেছে। বামফ্রন্টের জন্য শুভকামনা রইলো।

পশ্চিমবঙ্গে বামফ্রন্ট পরাজিত

Leave a Reply