$$ছ্যাঁকা খাওয়ার উপকারিতা-
ছ্যাঁকা শব্দটি শুনলেই অনেকের হৃদেয়েয় অলিগলিতে ব্যাথা বেদনা শুরু হয়ে যায়।এ যুগের ডিজিটাল তরুন তরুনীদের কাছে ব্যাপক পরিচিত শব্দ হলেও ছ্যাঁকা জিনিসটা কিন্তু আসলেই আজব।আসুন জেনে নিই ছ্যাঁকা খাওয়ার উপকারিতা :-
1.ব্যাপক গবেষনা থেকে জানা গেছে,ছ্যাকা জিনিসটা ভক্ষন করার ফলে কর্মদক্ষতা ও মনোবল টাইগারের গতি নিয়ে জেগে ওঠে।তা না হলে ছ্যাঁকা খাওয়া প্রেমিক প্রেমিকারা আবারও প্রেম করে কীভা…বে ?
2.রমনা বিশ্ববিদ্যালয়ের দীর্ঘকালের গবেষনায় জানা গেছে,নরম মনের তরুন তরুনীদের জন্য ছ্যাঁকা একটা মহৌষধ,যা খেলে নরম দিলও কঠিন হয়ে যায়।
3.আর যাই হোক ভিটামিন সমৃদ্ধ ছ্যাকা খেলে নাকি খাওয়া দাওয়া রুচি বেড়ে যায়।কারন ছ্যাঁকা খাওয়ার পরই তো সিগারেট,বোতল(আর গুলো বুইঝা লন)।
4.আপনি যদি ছেলে হন ,তাহলে ছ্যাঁকা থাইলে নিজেরে ভাগ্যবান ভাবেন।যেহেতু ছ্যাকা দেয়া কইতরীটা নাই সেহেতু ডেটিং নাই,শপিং নাই, চাইনীজও নাই। সুতরাং আপনার মানিব্যাগের স্বাস্থ্য ভালোই থাকবে।

$$কিভাবে স্ত্রী কে খুশি রাখতে হয়্?

-এটা খুব একটা কঠিন না, কিছু টিপস মেনে চলুন্।

যেমন্ঃ-

১,বন্ধু।

২, সাথী।

৩, ভালোবাসা।

৪, স্টাইলিস্।

৫,

৬,

,

,

,

১৪৪, সৎ।

১৪৫, উদারতা।

,

,

,

২০০, সব কথা মেনে চলা।

*কিভাবে স্বামী কে সুখী রাখতে হয়্?

– শুধু একটাই নিয়ম্।

১, তাকে একা থাকতে দিন্, ( leave him alone) :

$$যে ব্যক্তি কোনো মারামারিতে উপস্থিত থেকে মারামারির গতি বৃদ্ধি বা হ্রাস করে , কিন্তু মারামারি শেষে পোশাকে এবং দেহে সম্পূর্ণ অক্ষত থাকে , তাকে ঐ মারামারির প্রভাবক বলে ।$$

$$ছেলেঃসত্যি আপনার মত সুন্দরি আর একটাও চোখে পড়েনি!! খোদা এত রূপ দিয়েছেনআপনাকে, দেখলে মনে হয় তিনি নিজ হাতে গড়েছেন আপনাকে সত্যি-
মেয়েটিঃ আহা আপনার সম্পর্কেও যদি এমন কথা বলতে পারতাম…. কিন্তু
ছেলেঃ( থতমত খেয়ে)ঃ কেন, অবশ্যই পারতেন!! আমার মত মিত্থুক হলে নিশ্চয়ই পারতেন

$$বন্ধুত্ব:

মেয়েদের বন্ধুত্ব:
এক মহিলা রাতে বাড়ি ফিরল না।
পরদিন মহিলাটি বাড়ি এসে তার স্বামীকে বলল, আমি আমার বান্ধবীর বাড়িতে ছিলাম।
স্বামী তার স্ত্রীর দশ জন্য সেরা বান্ধবীদের ফোন করে ব্যাপারটা জানতে চাইল। সবাই বলল এ ব্যাপারে তারা কিছুই জানে না।

ছেলেদের বন্ধুত্ব:
এক পুরুষ রাতে বাড়ি ফিরল না।
পরদিন পুরুষটি বাড়ি এসে তার স্ত্রীকে বলল, আমি আমার বন্ধুর বাড়িতে ছিলাম।
স্ত্রী তার স্বামীর দশ জন্ সেরা বন্ধুর কাছে ফোন করে ব্যাপারটা জানতে চাইল। আট জন বলল হ্যাঁ সে রাতে তাদের সাথে ছিল, দুই জন বলল সে এখনও তাদের সাথে আছে।

$$আপনি কি জানেন, গবেষক/বিজ্ঞানীরা স্বর্গে গেলে প্রথমে কি করবে?





তারা আত্মহত্যা করে পৃথিবীতে ফিরে আসতে চাইবে। কারন, স্বর্গে কোন কিছু পাওয়ার জন্য গবেষনা করতে হবে না। সেখানে যায় চাওয়া হবে তাই পাওয়া যাবে।

”মনে রেখো ! যারা আল্লাহর বন্ধু, তাদের না কোন ভয় ভীতি আছে, না তারা চিন্তান্বিত হবে। যারা ঈমান এনেছে এবং ভয় করতে রয়েছে,তাদের জন্য সুসংবাদ পার্থিব জীবনে ও পরকালীন জীবনে। আল্লাহর কথার কখনো হের-ফের হয় না। এটাই হল মহা সফলতা।”

[সূরা ইউনুস: ৬২-৬৪]
জারীর ইবনে আব্দুল্লাহ (রাঃ) হতে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেনঃ যে লোক মানুষকে দয়া করে না, তাকে আল্লাহ তা’আলা দয়া করেন না । (বুখারীঃ ৬০১৩,৭৩৭৬, মুসলিমঃ ২৩১৯)

একটু প্রাণ খুলে হাসুন !!!২৮!!!

Leave a Reply